২ ভাদ্র ১৪২৪, বৃহস্পতিবার ১৭ আগস্ট ২০১৭ , ৯:৪০ পূর্বাহ্ণ

ইউরিয়া সার খেয়ে মারা গেল বন্যহাতি


গো নিউজ২৪ | জেলা প্রতিনিধি আপডেট: ১২ আগস্ট ২০১৭ শনিবার
ইউরিয়া সার খেয়ে মারা গেল বন্যহাতি

শেরপুর: শেরপুর সীমান্তের বিভিন্ন গ্রামে তাণ্ডব চালানোর পর ভুল করে ইউরিয়া সার খেয়ে মারা গেল এক বন্যহাতি। হাতিটির মৃত্যুর কারণ জানতে প্রাণিচিকিৎসকরা এর ময়নতদন্ত করছেন।

ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার (১২ আগস্ট) মধ্য রাতে শ্রীবর্দী উপজেলার রানী শিমূল ইউনিয়নের সীমান্ত ঘেষা পাহাড়ি হালুহাটি গ্রামে।

এলাকাবাসী জানায়, প্রায় প্রতিদিনের মতো সীমান্তের বিভিন্ন গ্রামে গোলা এবং ক্ষেতের ধান, কঁচি লতা-পাতা ও বিভিন্ন গাছের আগাছা খেয়ে যায় গারো পাহাড়ের বন্যহাতির দল। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে ওই গ্রামে এক দল হাতি হামলা চালিয়ে ঘর-বাড়ি তছনছ করে। এক পর্যায়ে এক ব্যক্তিকে পায়ে পৃষ্ট করে হত্যা করে। আরো দুই জনকে আহত করে চলে যায় হাতির দল। 

এরই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার রাতে আবারো হালুহাটি গ্রামে ঢোকে হাতির দল। গ্রামের লালু রবিদাস, মাজেদ এবং অরফুলি পাগলির ঘর ভাঙচুর করে গোলার ধান খেতে থাকে হাতির দল। এসময় মাজেদের ভাঙা ঘরের ভেতর একটি হাতি শুর দিয়ে ভুল করে ঘরে রাখা ইউরিয়া সার খেয়ে ফেলে। পরে ফুডপয়োজিং হয়ে সেখানেই মৃত্যু হয় ওই হাতির।

এব্যাপারে শ্রীবরর্দী উপজেলার ভ্যাটেনারি চিকিৎসক হাসান মাহমুদ জানান, প্রাথমিক ভাবে হাতির মৃত্যু কারণ হিসেবে ফুড পয়োজিং হিসেবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে ময়নাতদন্ত শেষে হাতিটির মৃত্যুর মূল কারণ জানা যাবে।

এদিকে, বন্য হাতির মৃত্যুর খবর পেয়ে শ্রীবর্দী উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা খালেদা নাসরিন, বন বিভাগের বলিঝুড়ি রেঞ্জ কর্মকর্তা তারিকুল ইসলাম, শ্রীবর্দী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রোজাউল করিম ঘটনাস্থলে গিয়ে হাতির মৃতদেহ দেখেন। এছাড়া ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ি-ঘর পরিদর্শন করেন।

প্রসঙ্গত, ইতোপূর্বে জেলার বিভিন্ন সীমান্ত এলাকায় বিদ্যুতায়িত ও অসুস্থ হয়ে বেশ কয়েকটি হাতির মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। তবে এবারই প্রথম বিষক্রিয়ায় হাতির মৃত্যু হলো।

গোনিউজ/এন