২৬ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, সোমবার ১১ ডিসেম্বর ২০১৭ , ১১:২৮ পূর্বাহ্ণ

আ.লীগের সংঘর্ষে যুবলীগ নেতা নিহত, গুলিবিদ্ধ ২৫


গো নিউজ২৪ | জেলা প্রতিনিধি আপডেট: ১২ আগস্ট ২০১৭ শনিবার
আ.লীগের সংঘর্ষে যুবলীগ নেতা নিহত, গুলিবিদ্ধ ২৫

শরীয়তপুর: নড়িয়া উপজেলায় আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষ গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়েছেন যুবলীগের এক নেতা। এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হয়েছেন আরও অন্তত ২৫ জন। শুক্রবার (১১ আগস্ট) সন্ধ্যা ছয়টার দিকে নড়িয়ার আন্দারমানিক বাজারে এ সংঘর্ষ হয়।

আহতদের শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতের নাম ইকবাল হোসেন (২৫)। তিনি রাজনগর ইউনিয়ন যুবলীগের সহসভাপতি।

নড়িয়ার রাজনগর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান জাকির গাজী ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি দাদন মীরবহরের সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়েছে। ইউপি নির্বাচন নিয়ে আগে থেকেই তাদের মধ্যে বিরোধ চলছিল। গত ইউপি নির্বাচনের পর ওই দুই পক্ষের মধ্যে অন্তত ১০ বার সংঘর্ষ হয়েছে। এ নিয়ে নড়িয়া থানায় মামলাও রয়েছে।

নড়িয়া থানা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার দুপুরে জাকির গাজীর সমর্থকদের মারধর করেন দাদন মীরবহরের সমর্থকেরা। পরে সন্ধ্যা ছয়টার দিকে জাকির গাজীর সমর্থকেরা দাদন মীরবহরের আন্দারমানিক বাজারের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান ভাঙচুর করেন ও বোমা হামলা চালান। তখন দুই পক্ষের সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে শতাধিক ককটেল বোমার বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। সংঘর্ষের সময় ইউনিয়ন যুবলীগের সহসভাপতি ইকবাল হোসেন গুলিবিদ্ধ হন। তাকে উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। ইকবালের বাড়ি পাশের রাজনগর মালতকান্দি গ্রামে। তিনি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক আমিন ফকিরের ছেলে।

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের চিকিৎসক শেখ মোহাম্মদ এহসানুল ইসলাম বলেন, ‘নিহত ইকবালের শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুলির চিহ্ন রয়েছে। গুলির কারণেই তার মৃত্যু হয়েছে বলে আমাদের প্রাথমিক ধারণা। আরও ২৫ ব্যক্তি গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ভর্তি হয়েছেন। তাদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।’

শরীয়তপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এহসান শাহ বলেন, স্থানীয় আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারের জন্য পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

গোনিউজ/এন