৫ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, রবিবার ১৯ নভেম্বর ২০১৭ , ৮:২৩ অপরাহ্ণ

অসামাজিক কাজের সময় ধরা পড়েছিলেন যেসব বলিউড অভিনেত্রী


গো নিউজ২৪ আপডেট: ১৬ এপ্রিল ২০১৭ রবিবার
অসামাজিক কাজের সময় ধরা পড়েছিলেন যেসব বলিউড অভিনেত্রী

ভারতীয় অভিনেত্রীদের একটা শ্রেণী পুরো বলিউড দাপিয়ে বেড়াচ্ছে সুনাম আর খ্যাতি দিয়ে আরেকটা শ্রেণী চালিয়ে যাচ্ছে বিকল্প উপায়ে আয়-রোজগারের ধান্দা।  এখানে নয়জন অভিনেত্রীর কথা তুলে ধরা হলো, যারা বিভিন্ন সময় বাসায় আবার কখনও হোটেলে অসামাজিক কাজ করার সময় পুলিশের হাতে ধরা পড়েছিলো।

১. কয়েক দিন আগেই মধুচক্র চালানোর অভিযোগে ভারতেরে গোয়া থেকে গ্রেফতার হয়েছেন‌ এক অভিনেত্রী। পুলিশ তাঁকে অভিনেত্রী বলে চিনতেই পারে নি। থানায় নিয়ে যাওয়ার মোবাইলে নিজের ভিডিও ও ওয়ালপেপার দেখিয়ে তিনি নিজের অভিনেত্রী পরিচয় প্রতিষ্ঠিত করেন। জানা যায়, বর্তমানে একটি নামকরা গোয়েন্দা সিরিয়ালে তিনি অভিনয় করছেন তিনি। তাঁর প্রকৃত পরিচয় জানতে পেরে পুলিশ হতবাক হয়ে যায়। পুলিশকে ওই মহিলা জানিয়েছেন, অভিনয় করে যা রোজগার করতেন তিনি তা তাঁর শখ আহ্লাদ মেটানোর পক্ষে যথেষ্ট ছিল না। অতিরিক্ত আয়ের লোভেই তিনি এই সেক্স র‌্যাকেট চালানোর সিদ্ধান্ত নেন।

২. সায়রা বানু: ২০১০ সালে হায়দরাবাদের বেগমপত এলাকার স্প্রিংগ হেভেন অ্যাপার্টমেন্টে একটি সেক্স র‌্যাকেটের পর্দা তুলবার জন্য যখন পুলিশ হানা দেয় তখন সেখান থেকেই গ্রেফতার হন তেলেগু সিনেমার অভিনেত্রী সায়রা বানু।

৩. কিন্নেরা: গোটা দু’য়েক তেলেগু ফিল্মে অভিনয় করা এই অভিনেত্রী যে তলে তলে যৌনকর্মীদের ‘দালাল’ হিসেবে কাজ করছেন তা প্রকাশ পায় একটি টিভি চ্যানেলের স্টিংগ অপারেশনের মাধ্যমে।

৪. সর্বাণী: তেলেগু টেলিভিশন অভিনেত্রীস ২৩ বছরের সর্বাণীকে মাধাপুরের একটি হোটেল থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ যৌন ব্যাবসা চালানোর অভিযোগে। সঙ্গে এক ব্যাবসায়ীও গ্রেফতার হন।

৫. মিষ্টি মুখোপাধ্যায়: এই বাঙালিনী মুম্বাইয়ে ‘ম্যায় কৃষ্ণা হুঁ’, কিংবা ‘লাইফ কি তো লগ গই’-এর মতো কিছু অসফল ছবিতে অভিনয় করেছিলেন। ২০১৪ সালে পুলিশ তাঁকে তাঁর ফ্ল্যাট থেকেই গ্রেফতার করে। অভিযোগ ছিল, মিষ্টি তাঁর দাদা ও বাবার সঙ্গে মিলে নিজের ফ্ল্যাটে পর্ন ফিল্ম বানাচ্ছেন।

৬. ভুবনেশ্বরী: দক্ষিণ ভারতের সফট পর্ন ছবির নামকরা নায়িকা। চেন্নাই থেকে পুলিশ তাঁকে যৌন ব্যাবসা চালানোর অভিযোগে গ্রেফতার করে।

৭. আইশ আনসারি: তামিল সিনেমার নামকরা আইটেম গার্ল যোধপুর থেকে গ্রেফতার হন যৌন পেশায় জড়়িত থাকার অভিযোগে। পুলিশ জানতে পারে, সারা ভারতের বিভিন্ন নামজাদা শহরেই নিজের ‘সার্ভিস’ দিয়ে বেড়়াতেন আইশ।

৮. শ্বেতা প্রসাদ: ছোটবেলাতেই ‘মকড়়ি’ সিনেমায় অভিনয় করে সুনাম অর্জন করেছিলেন শ্বেতা। পরে দক্ষিণী সিনেমায় অভিনয় শুরু করেছিলেন। বানজারা হিলসের পার্ক হোটেলে যখন হায়দরাবাদ পুলিশ রেড করে তখন মধুচক্রের সঙ্গে জড়়িত থাকার অভিযোগে শ্বেতাও গ্রেফতর হন।

৯. সুকন্যা: দক্ষিণী সিনেমার নামজাদা অভিনেত্রী। তেলেগু, তামিল, মালায়ালাম, কন্নড়় ভাষার সিনেমায় অনেকদিন থেকেই অভিনয় করছেন তিনি। চেন্নাইয়ের একটা বিলাসবহুল হোটেলে সেক্স র‌্যাকেট চালানোর অভিযোগে তাঁকে হাতেনাতে গ্রেফতার করে পুলিশ। -এবেলা

গো নিউজ২৪/এএইচ